দুমকীতে সাংবাদিক জহুরুল ইসলাম জুয়েল এর বাসায় ডুকে সন্ত্রাসী হামলা

প্রকাশিত: ১১:০২ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯

দুমকীতে সাংবাদিক জহুরুল ইসলাম জুয়েল এর বাসায় ডুকে সন্ত্রাসী হামলা

মোঃ শফিউর রহমান কামাল বরিশাল ব্যুরোঃ গতকাল ১০ ডিসেম্বর বেলা ১২ সময় সাংবাদিক জহুরুল ইসলাম জুয়েল এর বাসায় ডুকে সন্ত্রাসী হামলা করেছে পিতা মৃত্যু মৌলভী আঃ রব সিকদার এর ছেলে খাইরুল ও তার ভাই ইমরুল, ঘটনাটি ঘটেছে পটুয়াখালী জেলার দুমকী উপজেলার দক্ষিণ মুরাদিয়া ৬নং ওয়ার্ডে,শিকদার বাড়ীতে। ঘটনার সূত্রপাত সাংবাদিক জহুরুল ইসলাম জুয়েল তার নিজের পারিবারিক কাজ শেষ করে রাস্তা থেকে বাড়ী আসে,বাড়ী এসে দেখি যে তার পাশের ঘরের লোক নাম খাইরুল তার নিজের ঘরের জন্য ডিপ টিওবয়েল বসানোর জন্য লোক আনে এবং ঐ লোক দের কে টিওবয়েল বসানোর জন্য সাংবাদিক জুয়েল এর বাবার নিজস্ব পৈতৃক সম্পত্তি দেখায়,অর্থাৎ সাংবাদিক জহুরুল ইসলাম জুয়েল এর বাবার নিজস্ব পৈতৃক সম্পত্তিতে টিওবয়েল বসানোর জন্য লোক জন নিয়ে জমি দেখায়,এমত অবস্থায় সাংবাদিক জুয়েল জমির কাছে গিয়ে বলে। যে এটা তো আমাদের জমি, আমার বাবার পৈতৃক সম্পত্তি তুমি এখানে কেন টিওবয়েল বসাবা।তোমার জায়গা দেখাও এবং তোমার জায়গায় টিওবয়েল বসাও।অন্যর জমিতে কেন টিওবয়েল বসাবা।এই কথা বলে সাংবাদিক জুয়েল ওখান থেকে চলে আসে। পরে খাইরুল এসে সাংবাদিক জুয়েল কে তার বাসার সামনে দাড়ানো দেখে বলে তুই ওহানে বাঁধা দিলি ক্যান, আমি বললাম ওই জমি আমাদের আমি বাঁধা দেবনা।একথা বললেই খাইরুল সাংবাদিক জুয়েল কে হুমকি দেয় বলে তোরে মারমু,সাংবাদিক জহুরুল ইসলাম জুয়েল বাস্তবে একজন বঙ্গবন্ধু’র আর্দশের সৈনিক এবং তিনি পটুয়াখালী জেলা কৃষকলীগ এর একজন নেতা। এই বলে খাইরুল ফের ঐ জমির ধারে চলে যায়,পরে তার ভাই ইমরুল ও খাইরুল ঘর থেকে রামদা হকেষ্টিক ও লাঠি নিয়ে সাংবাদিক এর বাসায় ডুকে হত্যার উদ্দেশ্যে অতর্কিত ভাবে সন্ত্রাসী হামলা করে।সাংবাদিক এর সাথে থাকা মোবাইল ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। এবং সাংবাদিক এর বাসার মালামাল জিনিস পত্র ভাংচুর করে।পরে সাংবাদিক জুয়েল ঘর থেকে দৌড় দিয়ে চলে গেল পথের মধ্যে তার মা এবং বোন কে পাশবিক ভাবে অত্যাচার, নির্যাতন,মারধর রক্তাক্ত করে সন্ত্রাসীরা।গায়ে পরে এ ধরনের সন্ত্রাসী কাজ তারা অহরহ ঘটাচ্ছে,পরে এই বিষয়ে দুমকী থানা পুলিশ এর অফিসার ইন চার্জ ওসি মোঃ মনিরুল ইসলাম কে জানানো হলে তিনি দুমকী থানা পুলিশ এর দারগা ইউসুফ সহ অন্যান্য পুলিশ সদস্য রা ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে।ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে কঠিন আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার হুশিয়ার দেয়। এবং দুমকী থানা পুলিশ ঘটনার লিখত বর্ণনা নেয়।এবং দুমকী থানা পুলিশ বলে যে সাংবাদিক এর উপরে সন্ত্রাসীদের হামলা খুবই মারাত্মক এবং এই হামলার পরিণাম খুবই ভয়াবহ হবে,বলে জানিয়েছেন পুলিশ প্রশাসন। যারা সমাজের বিবেক এর উপর হামলা করতে পারে তারা যে কোন ধরনের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড করতে পারে।এছাড়াও তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগ উঠেছে, ঘটনাটি পটুয়াখালী জেলার পুলিশ সুপার জনাব মোঃমইনুল হোসেন কে জানানো হলে তিনি বলেন সাংবাদিক এর উপরে সন্ত্রাসীদের হামলা খুবই নিন্দাজনক, ঘৃণিত ও জঘন্য অপরাধ এবং তিনি সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তি দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন।।


মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest