বাংলাদেশ বার কাউন্সিল পরীক্ষা বঞ্চিত শিক্ষানবীশ আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের অশ্রুঝড়া মিনতি

প্রকাশিত: ১১:৫৭ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ৭, ২০২০

বাংলাদেশ বার কাউন্সিল পরীক্ষা বঞ্চিত শিক্ষানবীশ আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের অশ্রুঝড়া মিনতি

প্রতিবেদক::

বাংলাদেশ বার কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ দীর্ঘ ২ বছর পর গত ২৮/০৮/২০১৯ইং তারিখে সুত্র নং- বা.বা.কা./প্রশাসন/২০১৯/১৮৬৬ এর নোটিশের মাধ্যমে পরবর্তী আইনজীবী তালিকাভূক্তি MCQ পরীক্ষার ফরম ফিলাপের জন্য আহবান করেন এবং পরীক্ষা অনুষ্ঠানের জন্য ২৯/১১/২০১৯ইং তারিখ নির্ধারণ করেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় আবারও পরীক্ষা পিছিয়ে তারিখ নির্ধারণ করা হয় আগামী ২৮/০২/২০২০ইং তারিখে। ইতোমধ্যে শিক্ষানবীশকাল ৬ মাস পূর্ণ হয়েছে আরোও হাজার হাজার শিক্ষানবীশ আইনজীবীবৃন্দের। নির্ধারিত পরীক্ষার তারিখ ২৮/০২/২০২০ইং ঠিক রেখে শুধুমাত্র রেজিস্ট্রেশন ও ফরম পুরনের সময় বৃদ্ধি করলেই হাজার হাজার শিক্ষানবীশ আইনজীবী এই পরীক্ষায় অংশ গ্রহনের সুযোগ পাবে। এই সুযোগটি পেলে হয়তো অকালে ঝড়ে পরবেনা তরুন মেধাবী আইন শিক্ষার্থী, নষ্ট হয়ে যাবেনা একটি পরিবারের স্বপ্ন, সামান্য একটু সুযোগের জন্য ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত পরীক্ষার আশায়-হতাশায় জীবন অতিবাহিত করবেনা। যেহেতু পরীক্ষা পিছিয়েছে তাই বঞ্চিত শিক্ষানবীশ আইনজীবীরা এই পরীক্ষায় অন্তর্ভুক্ত করার জন্য কর্তৃপক্ষের দিকে তাকিয়ে আছে। বঞ্চিত শিক্ষানবীশ আইনজীবীরা বার কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ বরাবর রেজিস্ট্রেশন ও ফরম পুরনের সময় বৃদ্ধির জন্য আবেদনও করেছেন গত ২২/১২/২০১৯ইং তারিখে এবং ছুটে বেড়াচ্ছেন বার কাউন্সিলের আইনজীবী নেতাদের ধারে ধারে। উল্লেখ্য যে বঞ্চিত যাহারা রীট করেছেন আদালত তাহাদেরকে রেজিস্ট্রেশন ও ফরম পুরন করার নির্দেশ প্রদান করেছে এবং যাহার কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

বাংলাদেশ বার কাউন্সিল পরীক্ষা বঞ্চিত শিক্ষানবীশ আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের আহবায়ক এস এম আলমগীর হোসাইন বার কাউন্সিল কর্তৃপক্ষের নিকট আরো আহবান জানান আইন শিক্ষার্থীরা আপনাদের সন্তান, তাই সন্তানের প্রতি সদয় হয়ে নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করে প্রতি বছর পরীক্ষার ব্যবস্থা গ্রহন করুন।

বাংলাদেশ বার কাউন্সিল কর্তৃপক্ষ ও এনরোলমেন্ট কমিটির সম্মানিত সদস্যবৃন্দ আইন শিক্ষার্থীদের বিষয়গুলো সুনজরে এনে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন করলে হাজার হাজার শিক্ষানবীশ আইনজীবীবৃন্দসহ ভবিষ্যৎ আইন শিক্ষার্থীরা উপকৃত হইবে।


Pin It on Pinterest