বরিশালে বিভিন্ন ব্যক্তির নাম ভাঙ্গিয়ে টাকা আদায়ের দায়ে এক জনকে ৭ দিনের জেল এবং বিভিন্ন অপরাধে জরিমানা আদায়

মার্চ ২৫ ২০২০, ২৩:৩৫

পারভেজ,বরিশাল প্রতিনিধিঃ বরিশালে করোনা ভাইরাস রোগ প্রতিরোধে অন্যান্য দিনের ন্যায় আজও জেলা প্রশাসন বরিশালের পক্ষ থেকে বরিশাল নগরীতে ২ টি মোবাইল কোর্ট টিম অভিযান পরিচালনা করেন। ২৫ মার্চ বুধবার সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়কে, ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অধিক মানুষের সমাগম করা থেকে বিরত থাকার পাশাপাশি নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যসামগ্রীর বাজার/দোকান, মেডিসিনের দোকান ইত্যাদির বাইরে সব ধরনের দোকানপাট বন্ধের নির্দেশনা পালনের লক্ষে। জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জনাব এস, এম, অজিয়র রহমানের নির্দেশনায় বরিশাল জেলার বিভিন্ন স্থানে মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করা হয়। মোবাইল কোর্ট অভিযান পরিচালনা করেন এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট জেলা প্রশাসকের কার্যালয় বরিশাল মোঃ নাজমুল হুদা। এসময় নগরীর নথুল্লাবাদ বাস স্ট্যান্ডে রাজিব শেখ নামের একজন গাড়ি চালককে শুভ বিবাহের স্টিকার লাগিয়ে অধিক যাত্রী পরিবহনের দায়ে। সংক্রামক রোগ (প্রতিরোধ, নিয়ন্ত্রণ ও নির্মূল) আইন ২০১৮ এর ২৪ ধারা লংঘন করার অপরাধে ১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। পাশাপাশি কাশিপুর বাজারে ২ জন গাড়ি চালককে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় এবং অতিরিক্ত যাত্রী পরিবহনের দায়ে সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ এর ১০২ ধারা অমান্য করায় নাসির মোল্লা ও সজল নামের দুই জন ব্যক্তিকে ১ হাজার টাকা করে মোট ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অপরদিকে নতুল্লাবাদ বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন বৈদ্যপাড়া মোড়ে মোঃ সাইদ হোসেন (২৭) নামের এক ব্যক্তি পুলিশের সার্জেন্ট এবং বরিশাল সিটি কর্পোরেশন মেয়র এর নাম ভাঙ্গিয়ে মানুষের কাছ থেকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে বিভিন্ন কৌশলে চাঁদাবাজি করার অপরাধে। স্থানীয় কাউন্সিলর, জনগণ ও গণমাধ্যমের ব্যক্তিরা তাকে ধরিয়ে দিলে কয়েকজন ভুক্তভোগীর কথা শুনে দন্ডবিধি ১৮৬০ এর ২৯১ ধারা অনুসারে ৭ (সাত) দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ড প্রদান করা হয়। অপরদিকে বরিশাল সিটি কর্পোরেশন এর ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলরের ছেলে এবং ভাতিজা সাইপ্রাস থেকে ইন্ডিয়া হয়ে দেশে এসেছে এবং হোম কোয়ারেন্টাইন আইন মানছে না এমন অভিযোগের ভিত্তিতে সেখানে গিয়ে তাদেরকে হোম কোয়ারেন্টাইন অবস্থায় পাওয়া যায়। এসময় এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সতর্ক করে বনেন পরবর্তীতে এমন অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে আপনাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।এসময় প্রসিকিউশন অফিসার হিসেবে কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই মাহবুব হোসেন ও বিআরটিএ’র সহকারী পরিচালক আতিক, মার্কেটিং অফিসার বরিশাল মোঃ শিবলী সহযোগিতা করেন। আইনশৃঙ্খলা রক্ষায়সহযোগিতা করেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের একটি টিম। অপরদিকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতকরণ, বাজার মনিটরিং ও বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের কোয়ারেন্টাইনে থাকা যাচাইকল্পে আজ নগরীর সাগরদী, মেডিক্যাল কলেজ এলাকা, রূপাতলী, নথুল্লাবাদ ও কাশীপুর এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়। মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন বরিশাল জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ জিয়াউর রহমান। এ সময় বিভিন্ন টি-স্টল, মুদি দোকান ও এলাকার মোড়ে মোড়ে যেখানেই জনসমাগম দেখা গেছে তা ছত্রভঙ্গ করা হয় এবং নিরাপদ দূরত্বে চলার নির্দেশনা প্রদান করা হয়। পাশাপাশি সবাইকে যৌক্তিক প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে আসতে নিষেধ করা হয়েছে এবং এ আদেশ অমান্যাকরীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়। দোকানের অভ্যন্তরে কমপক্ষে ১৫-২০ জন লোকের সমাগম ঘটিয়ে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকি বৃদ্ধি করায় ৩ জন দোকান মালিককে সংক্রামক রোগ (নিয়ন্ত্রণ, প্রতিরোধ ও নির্মূল) আইন ২০১৭ এর ২৪ ধারা এবং দণ্ড বিধি ১৮৬০ এর ১৮৮ ধারায় সরকারী আদেশ অমান্য করায় সতর্কতামূলকভাবে মোট ৫ হাজার ৫ শত টাকা জরিমানা করা হয়। মোবাইল কোর্টে প্রসিকিউটিং অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন উপজেলা নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক মোঃ জাকির হোসেন। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় সহায়তা করেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের একটি টিম। অভিযান শেষে এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট দয় বলেন, বরিশাল জেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনস্বার্থে এ ধরণের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

আমাদের ফেসবুক পেজ


Pin It on Pinterest