ঠাকুরগাঁওয়ে এক বাসাবাড়ীতে অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কাজে অবস্থায় তিনজনকে আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

প্রকাশিত: ৭:৫৭ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৯

ঠাকুরগাঁওয়ে এক বাসাবাড়ীতে অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কাজে অবস্থায় তিনজনকে আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

মো: মোতাহার হোসেন, ঠাকুরগাঁও জেলা প্রতিনিধি: দেহ ব্যবসার সংবাদ পেয়ে ঠাকুরগাঁওয়ে এক বাসাবাড়ীতে অভিযান চালিয়ে অসামাজিক কার্যকলাপরত অবস্থায় তিনজনকে আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে গেছে দুই খদ্দের। ১৫ নভেম্বর শুক্রবার বিকেল ৫টায় সদর উপজেলার দক্ষিণ সালন্দর ইউনিয়নের আরাজী কৃষ্ণপুর ভাঙাপুল নামক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। আটককৃতরা হলেন- সদর উপজেলার দক্ষিণ সালন্দর ইউনিয়নের আইয়ুব আলীর স্ত্রী আজিমা আক্তার ওরফে সাথী (৪৫), তার মেয়ে অর্নী আক্তার পাখী (১৮) ও পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলার মকবুল হোসেন এর স্ত্রী মরিয়ম (২৫) অশ্লীল কার্যকলাপে লিপ্ত থাকায় আটক করেন। আটককৃতরা তাদের দোষ স্বীকার করায় প্রত্যেককে তিন মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ-আল-মামুন। এসময় সালন্দর ইউপি চেয়ারম্যান মাহাবুব আলম মুকুল, পেশকার বজলুর রহমান, সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) পিযুষ, এসআই আব্বাস সহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স উপস্থিত ছিলেন। সালন্দর ইউপি চেয়ারম্যান মাহবুব আলম মুকুল জানান, বেশ কিছু দিন ধরে সালন্দর ইউনিয়নে গোপনে দেহ ব্যবসা চালিয়ে আসছিলো এই পরিবার। এ নিয়ে তাদের কয়েকবার মৌখিকভাবে সতর্ক করার পরও তারা তা শোনেননি। পরে এলাকাবাসি সম্প্রতি অসামাজিক কার্যকলাপ বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন সহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরে অভিযোগ দাখিল করে। এ অবস্থায় ১৫ নভেম্বর শুক্রবার বিকেল গোপন সংবাদ পেয়ে সেখানে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুল্লাহ-আল-মামুন সহ সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্স নিয়ে অভিযান চালালে অসামাজিক কার্যকলাপরত অবস্থায় তিনজন মহিলাকে আটক করে পুলিশ।তবে এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায় দুই খদ্দের। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাদের দোষ স্বীকার করায় ভ্রাম্যমাণ আদালত তাদের প্রত্যেককে তিন মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করে। এলাকাবাসীর অভিযোগ তার কারণে এলাকায় অশ্লীল কার্যকলাপে যুব সমাজ আক্রান্ত হচ্ছে।


এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest