গৌরনদীর বাটাজোড়ারের সিঙ্গা গ্রামের দু’পক্ষের সংঘর্ষের মূল কারন।

প্রকাশিত: ৭:০৩ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৯

গৌরনদীর বাটাজোড়ারের সিঙ্গা গ্রামের দু’পক্ষের সংঘর্ষের মূল কারন।

সর্বহারা নেতা আসলাম এবং কালাম শিকদারের ,ফুফাতো ভাই মোতাহার প্যাদার ছেলে মিন্টু, সোহাগ প্যাদার নেতৃত্বে বিগত ৩/৪ বছর যাবৎ সম্মিলিত বড় ধরনের জুয়ার আসর বসিয়ে কোটি টাকার বানিজ্য করে আসছে। অন্যদিকে আসলাম সহদর কালাম শিকদার, সর্বহারা হোলেও, বর্তমান আওয়ামীলীগ নেতা! তার ছেলে নৌসেনা ওমর ফারুক দীর্ঘদিন চিটাগং থেকে লক্ষ লক্ষ পিস ইয়াবা, বাবা কালাম শিকদারের মাধ্যমে এলাকায় প্রেরণ করে, কর্মহীন বাবা, কালাম শিকদার প্রতি মাসে প্রায় ৭০/৮০ লক্ষ টাকা ইয়াবা বিক্রি করে আজ অঢেল অবৈধ টাকার মালিক। কালামের ইয়াবা বিক্রিতে জুয়ার মহাজন মিন্টু, সোহাগ, সরাসরি যুক্ত হয়ে, স্বপন ঘরামী, হারুনপ্যাদা, তার দু’ছেলে, বোন জামাই লুৎফর সরদার, (লতু) হাসেম দপ্তরের ছেলে মুরাদ সরদার, সহ কালামের মটর বাইক চালক, ইব্রাহিম শিকদার, মোহসীন হাওলাদার, তার দু’ছেলে সহ আশেপাশের বহু মানুষক কাঁচা টাকার গন্ধে মাদক বিক্রেতা বানিয়ে-ই ক্ষান্ত হয় নি। এমনকি মাদকাসক্তও বানাতে সক্ষম হোয়েছে। বর্তমানে ওরা সবাই-ই প্রয়োজনে আওয়ামীলীগ করে। গত শনিবার দু’পক্ষের মারামারির মূল সূত্রপাত সূত্রমতেঃ- কালাম শিকদার সিন্ডিকেটের বাইরে গোপনে প্রায় ৫ হাজার পিছ ইয়াবা বিক্রির টাকার ভাগাভাগি নিয়ে। মারামারির ঘটে। এক পর্যায়ে সর্বহারা কালাম এবং আসলাম তাদের সাথী, সর্বহারা রানা (রনো) পিতা শাহ্ আলম, ব্রাহ্মণদিয়া আগরপুরকে শত্রুদের মোকাবিলা করতে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ডাকে এবং স্হানীয়দের তথ্য মতে রানা দলবল নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে প্রতিপক্ষ মিন্টু সোহাগ গংদের উপর গুলি বর্ষন করে,এবং আসলাম, কালাম, ওমর ফারুক, ইব্রাহিম প্রতিপক্ষ মিন্টু গংদের মারধোর সহ এলোপাতাড়ি কোপাতে শুরু করেলে হাবিব নামে আরেক জুয়ারি মারাত্মক জখম হয়। আহতদের বর্তমানে বরিশাল আশোকাঠী চিকিৎসা দেয়া হোচ্ছে। সন্ত্রাসী আসলাম, কালাম, মিন্টু, সোহাগ, হারুন, লুৎফরদের সন্ত্রাসের ভয়ে এলাকাবাসী মুখ খুলতে সাহস না পেয়ে জিম্মি দশায় চুপচাপ আছে। প্রকাশ আছে উক্ত আসলাম কালাম নিজেদের র্য়াবের সোর্স পরিচয় এলাকায় নানাভাবে দুর্দান্ত প্রতাপে মানুষের কাছ থেকে নিরব চাঁদাবাজি চালিয়ে আসছে। বছর দুয়েক পূর্বে শাহাজিরা গ্রামের জনৈক মতি প্যাদার কাছ থেকে আসলাম শিকদার ২ দু’লক্ষ ৩০ ত্রিশ হাজার টাকা চাঁদাও নিয়েছে। আসলাম, কালাম, মিন্টু, সোহাগ এর নেতৃত্বে, বর্তমানে বাটাজোড় মিশুক মালিক সমিতি’র ঘরে, সিঙ্গা শাহজাহান ম্যানেজারের বাড়ীর পশ্চিম পাড়ে পানের বরজে, হালিহাতা, বাহাদুরপুর, আধুনা, ব্রাহ্মণদিয়া, ঘন্ডশ্বর, সহ বহু জায়গায় জুয়া এবং মাদকের আসর জমজমাট।


এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest