ক্ষ’মা চাইলেন মু’ক্তিযু’দ্ধ বি’ষয়ক ম’ন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক

প্রকাশিত: ৮:২৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৯

ক্ষ’মা চাইলেন মু’ক্তিযু’দ্ধ বি’ষয়ক ম’ন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক

মোহাম্মদ মাহমুদুল হাসান, বিশেষ প্রতিনিধি, ঢাকাঃ সম্প্রতি প্রকাশ করা রাজাকারদের তালিকায় কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধার নাম আসার ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক। মঙ্গলবার সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এই ঘটনার দায় নিজের কাঁধে নিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করেন তিনি।তিনি বলেন, ‘রাজাকারদের তালিকায় মুক্তিযোদ্ধাদের নাম আসায় আমি অত্যন্ত দুঃখিত। আমার নাম ওই তালিকায় এলে আমি যেভাবে কষ্ট পেতাম, তারাও এমন কষ্ট পেয়েছেন। এই বিষয়ে আমরা ব্যাথিত।’ তিনি আরও বলেন, ‘এই ঘটনার পুরো দায় আমি নিজের কাঁধে নিচ্ছি এবং এর জন্য আমি ক্ষমা প্রার্থনা করছি। বেশ কয়েকটি অভিযোগ ইতোমধ্যে আমাদের হাতে এসেছে। অভিযোগের পরিমাণ বেশি হলে তালিকা প্রত্যাহার করা হবে। এরপর তদন্ত করে আবার যখন নতুন করে তালিকা ছাপাবো, অবশ্যই দুঃখ প্রকাশ করে ছাপাবো। সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে রাজাকারদের যেই তালিকা পেয়েছি, সেটাই প্রকাশ করেছি। এটা আমরা তৈরি করি নি। জাতি এই তালিকা চেয়েছে, আমরা শুধু প্রকাশ
করেছি মাত্র। যারা এই তালিকাটি তৈরি করেছে তাদের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কিনা, এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, একাত্তরে কারা এই তালিকা তৈরি করেছে তাদের খুঁজে বের করতে পারলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এর আগে, গত রবিবার মুক্তিযুদ্ধের বিরোধীতাকারী যেসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে ১৯৭২ সালের দালাল আইনে মামলা করা হয়েছিল
তাদেরকে রাজাকার আল-বদর, আল-শামস বাহিনীর সদস্য হিসাবে চিহ্নিত করে ১০ হাজার ৭৮৯ জনের একটি তালিকা প্রকাশ করেছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক তার মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তালিকা প্রকাশ করেন। তবে তালিকা প্রকাশের পরই তালিকায় কয়েকজন মুক্তিযোদ্ধার নাম থাকার অভিযোগ ওঠে।


মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest