কাশীপুর ইউপি নির্বাচনে ষড়যন্ত্রকারীদের টার্গেট লিটন মোল্লা

প্রকাশিত: ১২:০৭ অপরাহ্ণ, জুন ১৭, ২০২১

কাশীপুর ইউপি নির্বাচনে ষড়যন্ত্রকারীদের টার্গেট লিটন মোল্লা

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ আগামী ২১ জুন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আসন্ন কাশীপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। যতই দিন যাচ্ছে ততই যেন উৎসব মুখর পরিবেশ সৃস্টি হচ্ছে। তবে আছে উদ্বেগ উৎকন্ঠা। অনেকেই মনে করেন এবার কাশীপুরের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে যে দুজন প্রতিধন্দীতা করছে তারা দুজনেই আওয়ামীলীগ পন্থী। তবে সেই দুই প্রার্থীর মননয়নে ছিলো ভিন্নতা। একজন বর্তমান সফল চেয়ারম্যান কামাল হোসেন লিটন মোল্লা। যিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ থেকে নমিনেশন পেয়ে নৌকা প্রতিকে নির্বাচন করবেন। অপরজন সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন না পেলেও নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করার কথা রয়েছে।

যদিও সাবেক চেয়ারম্যান নুরুল ইসলামকে আওয়ামীলীগ থেকে মনোনয়ন না দেওয়ার পরেও তার জোর করে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে দাড়ানো নিয়ে আওয়ামীলীগের অনেক সিনিয়র নেতাদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করছে বলে বিশ্বস্থ সূত্রে জানাগেছে। নুরুল ইসলামের এহেন কার্জকালাপকে আওয়ামীলীগের অনেক ত্যাগী নেতারাও ভালোভাবে নিচ্ছেনা বলেও জানা গেছে। যদিও আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নুরুল ইসলামের দাবী, জনগনের জন্য কাজ করতেই তিনি এ স্বিদ্বান্ত নিয়েছেন। তবে ভিন্নতা ছিলো বর্তমান সফল চেয়ারম্যান ও কাশীপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক কামাল হোসেন লিটন মোল্লার বেলায়। মনোনয়ন পাওয়ার আগেই তিনি সকলের সামনে প্রকাশ্যেই বলে দিয়েছেন- “দলের স্বিদ্বান্তই আমার স্বিদ্বান্ত। দল যদি মনে করে আমাকে এই ইউনিয়নে ধরকার, তাহলে আমি নির্বাচন করবো। নয়তো না।”

গনমাধ্যমকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি (লিটন মোল্লা) কাশীপুরে নৌকা প্রার্থী যাতে না হতে পারে সেজন্য যা যা করা ধরকার ষড়যন্ত্রকারীরা এখন তাই করছে। আমাকে গায়েল করার জন্য আমার নামে প্রশাসনের বেশ কয়েকটি দপ্তরে এই ষড়যন্ত্রকারীরা মিথ্যা অভিযোগ দিয়েই শান্ত হয়নি। আমার নির্বাচনী প্রচারনায় বাধাঁ দেওয়া, কর্মীদের উপর হামলা, ও কার্যালয় ভাংচুর কি করেনি এরা ? সব করেছে। আমি প্রতিটি মিথ্যা অভিযোগের আইনি ভাবে প্রশাসনের কাছে সঠিক জবাব দিয়েছি। আল্লাহ সহায় হলে আর সুষ্ঠ ভোট হলে কাশীপুর ইউনিয়ন থেকে আমি শতভাগ আশাঁবাদী।” উল্লেখ্য- বরিশাল সদর উপজেলার ২ নং কাশিপুর ইউনিয়ন বাসীর জনমত জরিপে চেয়ারম্যান পদে এগিয়ে আছেন জনপ্রিয় চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মোঃ কামাল হোসেন লিটন হোসেন মোল্লা। ইউনিয়নবাসী মনে করছে বিগত নির্বাচনের পর থেকে এলাকার সর্বস্থরের মানুষের সাথে রয়েছে চেয়ারম্যান লিটন মোল্লার হৃদয়ের সম্পর্ক। এলাকার উন্নয়নে নিজ উদ্যোগে রেখেছেন বিভিন্ন ভুমিকা। করোনার প্রভাবে ক্ষতিগ্রস্থ নিম্ন আয়ের মানুষ ও হতদরিদ্রদের জন্য চাল, ডাল, তৈল, ডিম সহ নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী সরকারী বাজেট সহ ব্যাক্তিগত তহবিল থেকে বিতরণ করে চলেছেন।আগামী ২১ জুন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বর্তমান চেয়ারম্যান লিটন মোল্লাকে আবারো চেয়ারম্যান হিসেবে দেখতে চায় ২ নং ইউনিয়নের জনগন। তিনি বর্তমান মাঠ জরিপে অন্যান প্রাথীর চেয়ে অনেক এগিয়ে রয়েছেন শেষ মুহুর্তের প্রচারণায় সরব হয়ে উঠছে কাশিপুর ইউনিয়নের হাট বাজার ও চায়ের দোকান থেকে শুরু করে ইউনিয়নের সব জনপদ।

ভোটারদের সাথে কথা বললে তারা জানান, লিটন মোল্লা পুনরায় আবার ও চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে এই জনপদে উন্নয়নের পাশাপাশি বাড়বে কর্মসংস্থান। তার যোগ্যতা আছে উন্নয়ন, কর্মসংস্থান ও আর্থ সামাজিক অবস্থার আমুল পরিবর্তনের। বিগত নির্বাচনের পর থেকেই বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মসুচি বাস্তবায়নে নিজেকে জড়িয়ে রেখেছেন লিটন মোল্লা প্রর্কৃতপক্ষে মাটি ও মানুষের নেতা। নৌকার মনোনীত প্রার্থী মোঃ কামাল হোসেন লিটন মোল্লা বলেন, মুজিব আদর্শকে বুকে ধারন করে আমার বাবা আজীবন মানুষের জন্য কাজ করে গেছেন। তার সন্তান আমি। মহান আল্লাহ আমাকে যতদিন বাচিয়ে রাখবে ততদিন মানুষের সেবা করে যাবো ইনশাআল্লাহ। তাই তিনি ইউনিয়ন বাসীকে নৌকা মার্কা দেখে পুনরায় চেয়ারম্যান নির্বাচিত করার আহবান জানান।


মুজিব বর্ষ

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Pin It on Pinterest