পাঁচবিবিতে বাবার পরিচয় না থাকায় মিলছেনা ভোটার আইডি কার্ড

প্রকাশিত: ৮:৪২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২, ২০২০

পাঁচবিবিতে বাবার পরিচয় না থাকায় মিলছেনা ভোটার আইডি কার্ড

জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ জন্মদাতা পিতা-মাতার পরিচয় না থাকায় জয়পুরহাটের পাঁচবিবি পৌর এলাকায় বসবাসকারী পিন্টু নামে এক ব্যাক্তির মিলছেনা জাতীয় ভোটার আইডি কার্ড। ৫০ বছরের দীর্ঘ জীবন পাড়ি দিলেও ভোটার আইডি কার্ড না থাকায় রাষ্ট্রীয় নানা সুযোগ-সুবিধা থেকেও বঞ্চিত তিনি।

জন্মদাতা পিতা-মাতার নাম বলতে ও জানতে না পারার কারনে আজও সে দেশের বৈধ নাগরিকের পরিচয় বহন করতে পারছে।

তবে পাঁচবিবি পৌর সভা থেকে একটি জন্ম সনদ সংগ্রহ করে একাধিক বার উপজেলা নির্বাচন কমিশন অফিসে ঘুড়েও পিতা-মাতার ভোটার আইডি দেখাতে না পেয়ে কপালে জুটছে না নিজের ভোটার আইডি কার্ডটি।

তাই পিন্টু বলেন কে আমি, আর কি আমার আসল জন্ম পরিচয়।

আজ থেকে প্রায় ৫০ বছর আগে পিন্টুর জন্মদাতা পাঁচবিবি রেলস্টেশনে কাগজে জড়িয়ে রেখে চলে যায়। আজকের যুবক পিন্টু সেদিনের ছোট্ট শিশুটি কাঁদছিলো রেলস্টেশনে আশেপাশে। তার বাবা-মা কেউ ছিলোনা।

পাঁচবিবি বাজারের বাঁশিনাথের স্বর্গীয় শশুড় প্রিয় গোপাল কুন্ডু শিশুটিকে কুড়িয়ে এনে বাঁশিনাথের বাবা সিবেন কুন্ডুর হাতে তুলে দিয়েছিল এবং বলেছিল শিশুটির কেউ নেই লালন-পালন করে বড় কর কথাগুলো বলেন, সিবেন কুন্ডু।

তিঁনি আরো বলেন, কয়েক বছর পরেই আমার বাবা ও শশুড় স্বর্গবাসী হন সেই থেকে আমার স্ত্রীর লালন-পালনে পিন্টু বড় হতে থাকে এবং ১০/১২ বছর বয়সেই সে অন্যের দোকানে ও হোটেলে কাজ করে আমাদের বাড়ি আর আসেনা।

পাঁচবিবি বাজারের নিমতলীর কুশ হোটেলে মালিক কুশ বিশাস বলেন, পিন্টু প্রায় ৩০ বছর যাবৎ আমার হোটেলে বয়ের কাজ করে আসছে। কুশ আরো বলেন, পিন্টুর সততা, সত্যবাদিতা ও যে কোন কাজে ফাঁকি না দেওয়ার জন্য তাকে আমি অন্য কোথাও যেতে দেইনা। শুধু তার জন্মদাতা পিতা-মাতার সঠিক পরিচয়ের অভাবে আজও সে দেশের নাগরিকের অধিকার পেলনা।

উপজেলা নির্বাচন কমিশনার শহিদুল ইসলাম বলেন, বাবা-মায়ের সঠিক পরিচয় ছাড়া ভোটার হওয়ার কোন সুযোগ নাই।


এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest