ভোলার পৌর নবীপুর ৩নং ওয়ার্ডে রহস্যজনকভাবে কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার।

প্রকাশিত: ৫:০১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২১, ২০২০

ভোলার পৌর নবীপুর ৩নং ওয়ার্ডে রহস্যজনকভাবে কিশোরীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার।

আপেল মাহমুদ(শাওন) ভোলা প্রতিনিধি।। ভোলার পৌর নবীপুর ৩নং ওয়ার্ডে মেয়র সড়কের বাসিন্দা ফারিয়া বেগম দিবা(২১) পিতা শাজাহান চৌধুরি,ও মাতা, হাসিনা বেগম এর মেয়ের নিজগৃহে ঝুলন্ত লাশ ও আত্মহত্যা করার ঘটনা ঘটে। সোমবার (২০জানুয়ারী) বিকেল ৫’ঘটিকায় বাবা ও মায়ের অনুউপস্থিতিতে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলে তথ্যনিয়ে যানাযায় নিহত ফারিয়া বেগম দিবা লেখাপড়ার পাশাপাশি শিক্ষাগত যোগ্যতায় ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং শেষকরে,ভোলার বাস টার্মিনাল দক্ষিনববঙ্গ পলিটেকনিক্যাল ইন্সটিটিউটে পার্টটাইম শিক্ষক হিসেবে চাকুরিরত ছিলেন।ঘটনার সময় তার বাবা শাজাহান চৌধুরি নিজ ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে দোকানে ও তার মাতা, হাসিনা বেগম তাদের মেয়েকে নিজ বাড়িতে একা রেখে আত্মীয়ার বাসায় যান বলে জানায় নিহতের পরিবার। পরে বিকেলে নিজগৃহে ফিরে এসে ঘরের প্রবেশ করতে মেয়েকে দরজায় দাড়িয়ে ডাকাডাকি করেন। পরে ঘরের ভিতর থেকে মেয়ের কোন সারা শব্দ শুনতে না পেয়ে পাশের ভারাটিয়াদের সাহায্য ঘরের জালানা ভেংগে প্রবেশ করলে ঘরের মেঝেতে উপরে কাঠের খুটির সাথে গলায় ওরনা পেঁচানো জুলন্ত অবস্থায় তার লাশ দেখতে পেয়ে এবং ভোলা থানার পুলিশকে খবর দেন। এদিকে পুলিশ খবর পেয়ে ভোলা সদর মডেল থানায় কর্মরত এস আই মোফাজ্জল হোসেন ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন, এবং ঝুলন্ত লাশের সকল আলামত জব্দ করেন। পরে ময়না তদন্তের জন্যে লাশটি ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে প্রেরন করেন। উক্ত ঘটনার তদন্তে ঘটনাস্থলে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার( সার্কেল) ও ভোলা সদর মডেল থানার ওসি মোঃ এনায়েত হোসেন ছুটে আসেন। অপরদিকে আত্মহত্যার কয়েকঘন্টাপর নিহতের হাতে লেখা একটি নোটবুক উদ্ধার করা হয়। এবং যেখানে নিহত কিশোরী বাবা ও মাকে উদ্দেশ্যকরে চিঠি লিখেন,যেখানে লেখাহয় -আব্বু ও আম্মু এবারের মতো আর বেচে থাকা সম্বব নয়। আমাকে তোমরা ক্ষমা করে দিও। আমার মৃত্যুর পর যেন লাশটা পোস্টমর্টেম ছাড়া দাফন করা হয়। এবং ১৩টি পবিত্র কোরয়ান শরীফ মসজিদে দান করতে অনুরোদ করাহয়। পরে সেই নোটবুকটি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে নিহতের পরিবার। বর্তমানে কিশোরী আত্মহত্যার পর নিহতের পরিবারে ও পুরো এলাকাজুড়ে এলাকাবাসীর মধ্যে চলছে শোকের মাতম। পাশাপাশি রহস্যজনক এই আত্মহত্যা করার কারন বের করতে আরো তথ্যসংগ্রহের চেষ্টা চলছে বলে জানায় ভোলা সদর থানার পুলিশ।


মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest