মহাবিপদ সঙ্কেত, ‘বুলবুল’ মোকাবিলায় ১০টি সাইক্লোন শেল্টারসহ প্রস্তুত নলছিটি

প্রকাশিত: ২:৩২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৯, ২০১৯

মহাবিপদ সঙ্কেত, ‘বুলবুল’ মোকাবিলায় ১০টি সাইক্লোন শেল্টারসহ প্রস্তুত নলছিটি

হাসান আরেফিন,নলছিটি ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ মোকাবিলা ও নলছিটিবাসীর জানমাল রক্ষার্থে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন। শনিবার (৯ নভেম্বর) সকালে নলছিটিসহ দক্ষিণাঞ্চলে ১০ নম্বর মহাবিপদ সঙ্কেত দেখিয়ে যেতে বলছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। শনি ও রবিবার (৯ ও ১০ নভেম্বর) জেলা প্রশাসন, জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ ও ফায়ারসার্ভিস কর্মীসহ সরকারি কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করতে কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। একই সঙ্গে এদিনগুলোতে কর্মস্থলে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন জেলা প্রশাসক মো. জোহর আলী। এছাড়াও যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে উপজলার ১০টি সাইক্লোন শেল্টার, ৯০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ৩২টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, পাকা ভবন, মেডিকেল টিম ওষুধপত্র, শুকনো খাবার ও রেড ক্রিসেন্ট কর্মীসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী কর্মীদের। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুম্পা সিকদার জানান, উপজেলায় ১০টি সাইক্লোন শেল্টার সেন্টার, স্কুল-কলেজ প্রস্তুত রাখা হয়েছে। একটি করে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। এছাড়া বিষখালী তীরবর্তী অতি ঝুঁকিপূর্ণ নাচনমহল ও রানাপাশা ইউনিয়নের ১১৫০জন লোককে নিরাপদ আশ্রয় সরিয়ে নিতে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। শনিবার দুপুর নাগাত প্যালেস্টাইন কলেজ সাইক্লোন শেল্টারে শতাধিক লোক আশ্রয় নিয়েছে। এছাড়াও রানাপাশা ইউনিয়নে সাইক্লোন শেল্টারে আশ্রয় প্রার্থীদের অবস্থান নিশ্চিত হওয়া গেছে। তাদের মধ্যে শুকনো খাবার সরবারহ করা হয়েছে।

জান-মালের নিরাপত্তা রক্ষার্থে চাল এবং শুকনা খাবার প্রস্তত রাখা হয়েছে। সাইক্লোন শেল্টার, পাকা শিক্ষা ভবন, মসজিদ, মন্দির খুলে আশ্রয় নেয়ার উপযোগী করতে এবং আবহাওয়ার গতিবিধি বুঝে যথাসময়ে মাইকিং ও প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে জনসাধারণকে সতর্ক করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। তাৎক্ষণিক যোগাযোগের জন্য নিয়ন্ত্রণ কক্ষ (কন্ট্রোল রুম) নম্বর সচল থাকবে বলেও জানান তিনি। নলছিটি থানার অফিসার ইনচার্জ মো. শাখাওয়াত হোসেন বলেন, দুর্যোগকালীন সময়ে দুষ্কৃতকারীরা যাতে কোনো রকম অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটাতে না পারে এজন্য নলছিটি থানার নিয়ন্ত্রণ কক্ষ (কন্ট্রোল রুম) ০১৭১৩৩৭৪২৮৭ নম্বরে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ রইল। নলছিটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক কর্মকর্তা আওছাফুল ইসলাম রাছেল বলেন, উপজলার ১০টি ইউনিয়নে ১০টি, উপজেলায় ১টি মেডিকেল টিম গঠন করা হয়েছে। যাতে দুর্যোগকালীন এবং পরবর্তীতে চিকিৎসাসেবা দেওয়া যায়। উল্লেখ্য, শুক্রবার দুপুর থেকে শুরু হওয়া গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি রাত থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টিতে রূপ নেয়। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ও সেই সঙ্গে ভেজা বাতাসও বইছে। প্রতিকূল আবহাওয়ার কারণে নলছিটির বারইকরণ, ষাইটপাকিয়া, তেতুলবাড়িয়াসহ সবকটি খেয়াখাটে অতি সর্তকতার সাথে ইঞ্জিল চালিত ট্রলার চলাচল করছে।


মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest