“নতুন সড়ক আইন তা সাজা বা জরিমানা করার জন্য নয়” ডিসি ট্রাফিক খাইরুল আলম

প্রকাশিত: ৭:২৪ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০১৯

“নতুন সড়ক আইন তা সাজা বা জরিমানা করার জন্য নয়” ডিসি ট্রাফিক খাইরুল আলম

পারভেজ,বরিশাল প্রতিনিধিঃ বরিশাল মেট্রোপলিটন উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) খাইরুল আলম বলেন, আমরা দেশেএখন আর সেই পিছনে ফিরে নেই বর্তমানে আমরা একটি উন্নত মধ্যম আয়ের দেশে জীবন-যাপন করছি।

সরকার যে নতুন সড়ক আইন করেছে তাতে শুধু সাজা বা জরিমানা করে রাজস্ব আদায় করা সরকার বা পুলিশের উর্দেশ্য না এই আইন করা হয়েছে যাতে করে আমাদের সকল শ্রেনীর চালকরা যেন আইনকে শ্রদ্ধা দেখিয়ে নিয়মতান্ত্রিকভাবে গাড়ি চলাচলের ব্যবস্থা করে।

তিনি আরো বলেন আমি বরিশালে দায়ীত্ব গ্রহন করার পর থেকে এপর্যন্ত ৫০ হাজারের বেশী মামলা দিয়ে আড়াই কোটি টাকার মত রাজস্ব আদায় করা সত্বেও যান-বাহন চালকদের সেরকম এখনো নিন্ত্রনে আনতে পারি নাই।

আবার অনেক ক্ষেত্রে দেখা যায় এক শ্রেনীর বিভিন্ন যান-বাহনের চালক রয়েছে তারা জরিমানা দিতে তাদের এক রকম অভ্যস্থ হয়ে যাবার কারনেই তারা ইচ্ছাকৃত ভাবে আইন মানতে চায় না।

সরকার এখন যে আইন করেছে তাশুধু চালকদের জন্য নয় এদেশের সকল নাগরীকের জন্য কার্যকর হবে।

তাই তিনি সড়ক আইনের নিয়ম মেনে যান-বাহন চালানো হলে তাদের কোন সমস্য হবে না। পাশাপাশি সরকারের মুল লক্ষ সড়কের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা। সেই সাথে অবৈধভাবে যেখানে-সেখানে গাড়ি পাকিং না করার আহবান সহ মটর বাইক চালকদের হেলমেট ব্যবহার করার আহবান জানান।

আজ বুধবার ২৭ নভেম্বর সন্ধ্যায় বরিশাল নগরীর গড়িয়ার পাড় নামক স্থানে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের আয়োজনে ও ও ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সহযোগীতায় সড়ক পরিবহন আইন ২০১৮ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জনমত গঠন ও সচেতনতামূলক সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি একথা গুলো ট্রাক চালক ও শ্রমিকদের উদ্দেশ্যে বলেন।

বরিশাল জেলা ট্রাক শ্রমীক ইউনিয়নের সভাপতি ও বিসিসি কাউন্সিলর আজাদ হোসেন কালাম মোল্লার সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন সহকারী পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) এ এফ এম ফায়জুর রহমান।

এসময় আরো বক্তব্য রাখেন ট্রাক শ্রমীক ইউনিয়নের সহ-সভাপতি আসাদুজ্জামান ছালাম,পোর্টরোড শাখা সভাপতি সৈয়দ আলম, সাধারন শ্রমীক নেতা মোঃ জুয়েল, নাসির উদ্দিন প্রমুখ।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন টিআই প্রশাসন রবিউল,পুলিশ পরিদর্শক শহর যান-বাহন বিদ্যুৎ চন্দ্র দে,সার্জেন্ট মোঃ সাদ্দাম হোসেন।

সভায় ট্রাক শ্রমীক ইউনিয়নের সদস্যরা বলেন বিআরটিএ’র কাছ থেকে ঘুষ ছাড়া সহজে লাইন্সেস পাওয়া যায়না। এছাড়া তাদের কাছ থেকে হয়রানী হতে হয় তা বন্ধ করা সহ সরকার যে আইন করেছে তা যেন চালক শ্রমীকদের দিকে আইনটি সংশোধন করার দাবী জানান তারা।

এর পূর্বে প্রধান অতিথি উপ-পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) খাইরুল আলমকে শ্রমীক ইউনিয়নের পক্ষ সভাপতি আজাদ হোসেন কালাম মোল্লা ফুলের শুভেচ্ছা জানান।


এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest