পীরগঞ্জে স্মার্ট ফোরটি মবিল’র কার্যালয়ে তালা।

প্রকাশিত: ৮:২৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯

পীরগঞ্জে স্মার্ট ফোরটি মবিল’র কার্যালয়ে তালা।

রবিউল ইসলাম, রংপুর প্রতিনিধি:

পীরগঞ্জে ‘স্মার্ট ফোরটি মবিল’ নকল করে বাজারজাত করার অভিযোগে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক পীরগঞ্জ থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।

গত কাল রাতে তিনি অভিযোগটি করেন। এর আগে ওই নকল মবিলের বিষয়ে পীরগঞ্জের ইউএনও মোবাইল কোর্টে গেলে পীরগঞ্জ উত্তরাঞ্চলের প্রধান কার্যালয়ে তালা ঝুলিয়ে কর্মকর্তারা পালিয়ে রক্ষা পায়।
জানা গেছে, পীরগঞ্জ উপজেলার সদরের মাদারগঞ্জ রোডে ওসমানপুর গ্রামে একটি ভাড়াটে বাসায় ‘রেড এন্ড গ্রীণ বিডি প্রাঃ লিঃ’র নামের বাংলাদেশী প্রতিষ্ঠান সিংঙ্গাপুরে উৎপাদিত ‘স্মার্ট ফোরটি মবিল’র উত্তরাঞ্চলের প্রধান কার্যালয় খুলে বসে। সেখান থেকে মবিল মার্কেটিংয়ের জন্য বেশকিছু যুবককে মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে নিয়োগও দেয়া হয়। তাদের বাজারকৃত নিম্নমানের ওই মবিল ব্যবহার করে অনেকেই মোটর সাইকেল নিয়ে বেকায়দায় পড়লে বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে অবগত করা হয়।
গত কাল বিকেলে ওই অফিসে মোবাইল কোর্ট পরিচালনার জন্য ইউএনও সেখানে গেলে অফিসটির উত্তরাঞ্চলের জিএম বরিশালের সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেন অফিসে তালা ঝুলিয়ে তড়িঘড়ি করে কর্মচারীদের নিয়ে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে টাকা দিয়ে চাকরী নেয়া কয়েক যুবক নাম না প্রকাশের শর্তে জানায়, আমাদের বেকারত্ত্বকে কাজে লাগিয়ে স্মার্ট ফোরটি মবিল’র ভুয়া মালিক সেজে প্রতারনা করেছে।
এদিকে ওই মবিলের আমদানীকারক ঢাকার গুলশান থানার মহাখালীর (আমতলী) এয়ারপোর্ট রোডের রেজাউল আশরাফ খান এ খবর পেয়ে পীরগঞ্জ থানায় প্রতারকদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। এতে ভুয়া মালিক গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের শহিদুল ইসলাম মিলন (৩৫) এবং বরিশালের সৈয়দ সাজ্জাদ হোসেনকে আসামী করা হয়েছে। রেজাউল আশরাফ বলেন, দেশের ১১টি জেলায় আমার প্রতিষ্ঠান স্মার্ট ফোরটি মবিল বাজারজাত করছে। এ পর্যন্ত আমরা ২ লাখ লিটার মবিল বাজারজাত করেছি। প্রতিটি বোতলে ১ লিটার মবিল একটি মোটর সাইকেলেই ব্যবহার করা হয়। ওসি সরেস চন্দ্র বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে। ইউএনও টিএমএ মমিন বলেন, বিধি অনুযায়ী,যে কেউ ব্যবসা করলে ইউএনকে অবহিত করতে হয়। কিন্তু এরা করেনি।


এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest