‘যুক্তরাজ্যের রেড অ্যালার্ট বাংলাদেশের প্রতি বৈষম্য’

প্রকাশিত: ১০:০৩ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৩, ২০২১

‘যুক্তরাজ্যের রেড অ্যালার্ট বাংলাদেশের প্রতি বৈষম্য’

যুক্তরাজ্যে প্রবেশে বাংলাদেশিদের জন্য যে রেড অ্যালার্ট দেওয়া হয়েছে, সেটা পলিটিক্যাল ইস্যুও হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। ইস্যুটিকে বাংলাদেশের প্রতি বৈষম্য বলেও মনে করে তিনি। সোমবার (১৩ সেপ্টেম্বর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এ কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশিদের প্রবেশে দেশটির সরকারের রেড অ্যালার্ট প্রত্যাহার হচ্ছে না, বিষয়টিকে পলিটিক্যাল ইস্যু বলে মনে করেন কিনা—এমন প্রশ্নের জবাবে ড. মোমেন বলেন, হতে পারে। তা না হলে, কেন তারা সেটা প্রত্যাহার করছে না। এটা আমাদের প্রতি একটি বৈষম্য।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যুক্তরাজ্য বলছে, আমাদের জনগণ টিকা কম দিয়েছে বলে রেড অ্যালার্ট দেওয়া হয়েছে। তবে আমাদের চেয়ে অনেক দেশ টিকা কম দিয়েছে। তাদের কেন রেড অ্যালার্ট দেওয়া হয়নি। এর আগে, গত ৯ এপ্রিল থেকে বাংলাদেশিদের ভ্রমণের ক্ষেত্রে রেড অ্যালার্ট জারি করে রেখেছে ব্রিটিশ ডিপার্টমেন্ট ফর ট্রান্সপোর্ট। বাংলাদেশ ছাড়াও এই তালিকায় আছে বিশ্বের আরও ৬২টি দেশ।

তবে সম্প্রতি নতুন সংশোধিত তালিকায় রেড অ্যালার্ট থেকে বাদামিতে উন্নিত হয়েছে ভারত, বাহরাইন, কাতার ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। এক্ষেত্রে এখনও বাংলাদেশকে লাল তালিকায় রাখাকে যৌক্তিক মনে করছে না ঢাকা। aড. মোমেন আরও বলেন, ২৪ কোটি টিকা আমাদের লাইনআপে আছে। ২ কোটি ২২ লাখ মানুষ ইতোমধ্যেই টিকা পেয়েছেন। এই অগ্রগতি কোনোভাবেই খারাপ নয়।


মুজিব বর্ষ

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Pin It on Pinterest