রাজশাহীতে শীতের সবজির দামেও উর্ধ্বগতি!

প্রকাশিত: ৮:১৬ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩১, ২০২১

রাজশাহীতে শীতের সবজির দামেও উর্ধ্বগতি!

রাজশাহী প্রতিনিধি :
শীতকালে মাঠে মাঠে প্রচুর পরিমাণে বিভিন্ন ধরণের শাক-সবজি উৎপাদন হওয়ায় বছরের অন্যান্য সময়ের তুলনায় দাম কম থাকে। তবে এবার ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে। শীতকাল হওয়ার পরেও শীতের সবজির দাম উর্ধ্বগতি। বিগত বছরের তুলনায়
এবার সবজি বাজারগুলোতে চড়া দামেই বিক্রি হচ্ছে। বিগত বছরগুলোতে এ সময় বেগুন ও ফুলকপি এবং সিম ১০ থেকে ১৫ টাকা কেজিতে বিক্রি হলেও এবার তা
দ্বিগুণেরও বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। এখন রাজশাহী মহানগরীর বাজারগুলোতে ফুলকপি, সিম ও বেগুন ৪০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া অন্যান্য সবজির
দামও বেশি।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১ দেড় মাস আগে থেকেই রাজশাহী মহানগর ও আশেপাশের উপজেলার বাজারগুলোতে শীতের সবজি আসতে শুরু করে। শুরুতে সবজি বেশ চড়া দামে বিক্রি হলেও কিছুদিন পরে সবজির দাম কমে ক্রেতাদের নাগালের মধ্যে চলে আসে।
বিশেষ ফুলকপি ১৫ টাকা কেজি, বেগুন ১৫ থেকে ২০ টাকা কেজি, সিম ১৫ থেকে ১৫ টাকা কেজি, বাঁধা ১০ থেকে ১৫ টাকা পিস, টমেটো ৩৫ থেকে ৪০ টাকা কেজিতে
বিক্রি হওয়া শুরু করে। এতে ক্রেতাদের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি নামে। কিন্ত সবজির এ কম দাাম বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। মাত্র কয়েকদিনের ব্যবধানে আবার সবজির দাম বাড়তে শুরু করে। এক লাফে ১৫ থেকে ২০ টাকা কেজি থেকে ৩৫ থেকে ৪০
টাকা কেজিতে চলে যায়। এ নিয়ে ক্রেতাদের মধ্যেও ব্যাপক ক্ষোভ দেখা যায়। তবুও নিত্য প্রয়োজনীয় হওয়ার কারণে ক্রেতারা বেশি দাম দিয়েই কিনতে বাধ্য হচ্ছেন। তবে বাজারে নতুন আলু ও টমেটোর দাম কিছুটা কমেছে। পুরাতন ও নতুন
আলুর দাম প্রায় একই।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বর্তমানে নগরের বাজারগুলোতে ফুলকপি ৪০ টাকা কেজি, সিম ৪০ টাকা কেজি, বেগুন ৪০ টাকা কেজি, নতুন আলু ২৫ থেকে ৩০ টাকা কেজি,
বাঁধা কপি ২০ থেকে ২৫ টাকা পিস, টমেটো ২০ থেকে ৩০ টাকা কেজি, পেঁয়াজের ফুলকা ১০ থেকে ১৫ টাকা আঁটি, লাল ও সবুজ শাক মান অনুযায়ী ১৫ থেকে ২০ টাকা
আঁটি, কাঁচা কলা ২০ থেকে ২৫ টাকা হালি, ধনে পাতা ৫ থেকে ১০ টাকা আঁটি, পুরাতন আলু ২০ থেকে ২৫ টাকা কেজি, কাঁচা মরিচ ৪০ টাকা কেজি, নতুন পেঁয়াজ
৩০ থেকে ৩৫ টাকা কেজি দামে বিক্রি হচ্ছে। এসব সবজির মধ্যে কাঁচা মরিচ, পেঁয়াজ, নতুন আলু, টমেটা, পেঁয়াজের ফুলকার দাম কমেছে। আর ফুলকপি, সিম ও
বেগুনের দাম বেড়েছে দ্বিগুণেরও বেশি। এছাড়াও মাছ ও মুরগির দামও বেড়েছে। রাজশাহী মহানগরীর বাজার ছাড়াও আশেপাশের উপজেলার বাজারগুলোতে সবজির দাম বেড়েছে। নগরের বিভিন্ন বাজারে সবজি কিনতে আসা ক্রেতারা বিশেষ করে মৌসুম হওয়া সত্ত্বেও শীতের সবজির দাম বৃদ্ধি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশসহ দাম বাড়ার বিষয়ে
সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের মনিটরিংয়ের অভাবকে দায়ী করছেন। ক্রেতারা বলছেন, ঠিক মতো বাজার মনিটরিং করলে ব্যবসায়ীরা বেশি দাম নিতে পারবেনা। মৌসুম হওয়া
সত্ত্বেও শীতের সবজি বেশি দামে কিনতে হচ্ছে ক্রেতাদের। সুরমান নামের এক ক্রেতা বলেন, দাম নাগালের মধ্যে নিয়ে আসতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে নিয়মিত বাজার তদারকি করতে হবে। তাহলে ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে ইচ্ছামতো দাম
বাড়াতে পারবেনা।
সবজি ব্যবসায়ীদের সাথে কথা হলে তারা বেশি দাম নেয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এবার কম সবজি উৎপাদন হয়েছে তাই দাম বাড়তি। পাইকারি বাজারে দাম বেশি
তাই খুচরা বাজারেও এর প্রভাব পড়েছে। কম দামে কিনতে পারলে ক্রেতাদের কাছে কম দামেই বিক্রি করা হবে।


মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest