উন্নয়ন বাধাগ্রস্তের নেপথ্যে কারা

প্রকাশিত: ১১:৪৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৫, ২০২০

উন্নয়ন বাধাগ্রস্তের নেপথ্যে কারা

মোঃ হাসিম উদ্দিন আঞ্চলিক প্রতিনিধি ঃ দিনাজপুরের নবাবগঞ্জের শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যানটি উত্তরবঙ্গের একটি প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি। ২০১০ সালে ৫১৭.৬১ হেক্টর আয়তনের এই জাতীয় উদ্যানটি শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যান হিসেবে স্বীকৃতি পায়। স্থানীয় সংসদ সদস্য শিবলী সাদিকের সহায়তায় বিলটির উন্নয়নে নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মশিউর রহমান । উন্নয়নের ধারাবাহিকতায় গত বছরের জুন মাসের এক তারিখে জাতীয় উদ্যান ও আশুড়ার বিলকে দৃষ্টিনন্দন করতে বিলের পশ্চিম অংশে নির্মাণ করা হয় । প্রায় ৯০০ ফিট দীর্ঘ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব কাঠের সেতু এবং এর পূর্ব অংশে মৎস্য উৎপাদন ও পর্যটকদের দৃষ্টিনন্দন বাড়াতে উদ্যানের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া আশুরার বিলে গত বছরের (২২শে জুন) শনিবার বিকেলে উপজেলার শেখ রাসেল জাতীয় উদ্যানে ১৮ লক্ষ ৬৪ হাজার টাকা ব্যয়ে ক্রস ড্যাম নির্মাণ করা হয় । তারপরেই সেখানে প্রতিনিয়ত হাজার হাজার দর্শনার্থীর আনাগোনা শুরু হয়ে। উন্নয়ন কে বাধাগ্রস্ত করে গত ১৩ জানুয়ারী দিবাগত রাতে আশুড়ার বিলের পাশে হরিপুর গ্রামের লোকজন আশুরা বিলের ক্রস ড্যামটি ভেঙ্গে ফেলে। এদিকে সংবাদ পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোছাঃ নাজমুন নাহার, সহকারী কমিশনার (ভুমি) মোঃ আল মামুন ঘটনাস্থলে পৌছে স্থানীয়দের সহযোগিতায় বাধটি পুনরায় সংস্কার করেন। হরিপুর গ্রামের কয়েকশ লোকজন এসে পুনরায় বাধটি ভেঙ্গে দেয় ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের উপর হামলা চালায়, সরকারি কাজে বাধা সরকারি সম্পতি ক্ষতি করে। মঙ্গবার (১৪ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় নবাবগঞ্জ থানায় বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশ(বিএডিসি) উপজেলা উপসহকারী প্রকৌশলী মোঃ রাশেদুর জামান বাদী হয়ে ১৭ জনের নাম উল্লেখ করে পাঁচ ছয়শ অজ্ঞাত নামা লোকের নামে থানায় মামলা করেন । এ অভিযোগ স্থানীয় ইউপি সদস্য মোঃ সোহেল রানা কে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ । এ বিষয়ে আশুড়ার বিল ও পর্যটক কেন্দ্রের স্থানীয়দের সাথে কথা বললে তারা আলোকিত সময় নিউজ পোর্টালের আঞ্চলিক প্রতিনিধিকে জানান – আশুরার বিল ও জাতীয় উদ্যান উন্নয়ন বাধাগ্রস্থ নেপথ্যে কারা ? এবিষয়ে স্থানীয় সংসদ সদস্য মোঃ শিবলী সাদিক এমপি বলেন , আশুরার বিলে কাঠের সেতু ও ক্রস ড্যাম বাঁধ নির্মাণ করে এটিকে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলতে আমি প্রকল্প হাতে নিয়েছি নিজে উদ্বোধন করেছি । উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে কাজ চলছে ।


মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest