সাভারে স্ত্রীর সহযোগিতায় নাবালিকা শ্যালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে

প্রকাশিত: ৯:১৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০২০

সাভারে স্ত্রীর সহযোগিতায় নাবালিকা শ্যালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে

আলোকিত সময় ডেস্ক ঃঢাকার সাভারে স্ত্রীর সহযোগিতায় নাবালিকা শ্যালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগে এক দম্পত্তিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড় এ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান (র‌্যাব)। তাদের হেফাজত থেকে দুই বছরের এক শিশুকেও উদ্ধার করা হয়। শনিবার বিকালে সাভার পৌর এলাকার ব্যাংক কলোনী মহল্লা থেকে তাদের গ্রেফতারের পর রোববার দুপুরে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‌্যাব-৪ এর সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাজেদুল ইসলাম সজল। গ্রেফতার ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর থানার পুরদনপুর গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে মো: সাহেব আলী (৩৪) ও তার স্ত্রী জেসমিন খাতুন (২৫)। উদ্ধারকৃত দুই বছরের শিশুটি গ্রেফতার জেসমিন খাতুনের বড় ভাই মো: রুবেলের মেয়ে। শিশুটিকে সিলেট থেকে অপহরন করে এনেছিল তারা। র‌্যাব-৪ জানায়, গ্রেফতার জেসমিন খাতুন তার শিশু সন্তানকে দেখাশুনা করানোর জন্য নিজের নাবালিকা বোনকে ২০১৮সালে সিলেট থেকে সাভারের ব্যাংক কলোনীর ভাড়া বাসায় নিয়ে আসে। পরে নিজের বোনকে ঘুমের ওষুধ খাওয়ানোর মাধ্যমে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে নিয়মিত স্বামীকে দিয়ে ধর্ষণ করতে সহযোগিতা করেতেন। পরবর্তী সময়ে মেয়েটি তার বাবা-মা কে বিষয়টি জানালে তার বাবা-মা নাবালিকা মেয়েকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। কিন্তু জেসমিন ও তার স্বামী বোনকে জিম্মি করার উদ্দেশ্যে বড় ভাই এর শিশুকন্যা কে সিলেট থেকে অপহরণ করে নিয়ে আসে। অপহৃত শিশুটিকে উদ্ধার করার জন্য জেসমিনের বড় ভাই, বড় বোন এবং চাচাতো ভাই সাভার আসে। পরে জেসমিন ও তার ধর্ষক স্বামী তাদেরকে নিজেদের ভাড়াবাসার এক কক্ষে আটক করে রাখে এবং মারধোর করে। একপর্যায়ে জিম্মিদশা থেকে বেরিয়ে শনিবার রুবেল পালিয়ে র‌্যাব-৪ -এ অভিযোগ জানালে র‌্যাব তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করেন। এঘটনায় ঘর্ষনের শিকার কিশোরীর বড় ভাই মো: রুবেল বাদী হয়ে গ্রেফতার বোন ও ভগ্নিপতির বিরুদ্ধে সাভার মডেল থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন।


মুজিব বর্ষ

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Pin It on Pinterest