কলকাতার দুই খেলোয়াড় করোনা পজিটিভ

প্রকাশিত: ৩:১৮ অপরাহ্ণ, মে ৩, ২০২১

কলকাতার দুই খেলোয়াড় করোনা পজিটিভ

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ক্রিকেটের এবারের আসর শুরুর আগে থেকেই শঙ্কা ছিল করোনাভাইরাসকে ঘিরে। শেষমেশ সত্যি হলো তা-ই। করোনাভাইরাসের ধাক্কায় পেছাতে হচ্ছে কলকাতা নাইট রাইডার্স ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর মধ্যকার সোমবারের ম্যাচটি।

ভারতে করোনার প্রাদুর্ভাবের মধ্যেও জৈব সুরক্ষা বলয়ের ভরসায় পূর্ব নির্ধারিত সূচিতেই আইপিএল শুরু করেছেন আয়োজকরা। তবু আশঙ্কা রয়েই গেছিল করোনাকে ঘিরে। এবার কলকাতা নাইট রাইডার্স শিবিরে হানা দিলো প্রাণঘাতী এ ভাইরাস।

এখনও ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) কিংবা আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের পক্ষ থেকে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়নি এ ব্যাপারে। তবে ইএসপিএন ক্রিকইনফো, ক্রিকবাজসহ ভারতের সব শীর্ষস্থানীয় সংবাদমাধ্যমেই প্রকাশিত হয়েছে এ খবর।

সেসব প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে অস্ট্রেলিয়ান পেসার প্যাট কামিনসসহ বেশ কয়েকজন খেলোয়াড় ও টিম স্টাফ অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তাদেরকে এরই মধ্যে আইসোলেশনে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে এবং সোমবারের ম্যাচটি পেছানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

ক্রিকইনফো তাদের প্রতিবেদনে জানাচ্ছে, কলকাতার দুই খেলোয়াড় স্পিনার ভরুন চক্রবর্তী এবং পেসার সন্দ্বীপ ওয়ারিয়ার করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া সাকিব আল হাসানসহ বাকিদের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। কাঁধের চোটে স্ক্যান করাতে বাবল ছেড়েছিলেন ভরুন, তখনই তিনি আক্রান্ত হয়েছেন বলে সন্দেহ করা হচ্ছে।

সোমবার চলতি আসরের ৩০তম ম্যাচে মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিল কলকাতা ও ব্যাঙ্গালুরুর। আহমেদাবাদের মোতেরায় বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হতো এ দুই দল। কিন্তু শেষ সময়ে এসে ম্যাচটি পেছাতে বলা হয়েছে স্টেডিয়াম কর্তৃপক্ষকে।

ক্রিকবাজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এখনও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না এলেও, জানা গেছে যে, কলকাতা শিবিরে করোনা সংক্রান্ত কারণেই ম্যাচটি হঠাৎ স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে বিসিসিআইয়ের পক্ষ থেকে আহমেদাবাদের স্টেডিয়াম কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে বলে জানাচ্ছে ক্রিকবাজ।

আজ দুপুরের পর আনুষ্ঠানিকভাবে ম্যাচের পরিবর্তিত সূচি ঘোষণা করা হবে বলে জানা গেছে। সেই মোতাবেক গুজরাট ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনকে প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে।


মুজিব বর্ষ

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Pin It on Pinterest