এখানে জোর-জবরদস্তির বিষয় নেই : ডিপজল

প্রকাশিত: ৫:০৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২২

এখানে জোর-জবরদস্তির বিষয় নেই : ডিপজল

শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদে বসা নিয়ে জায়েদ খান ও নিপুণের মধ্যে এখন আইনি লড়াই চলছে। গত ৯ ফেব্রুয়ারি আদালত এ পদে স্থিতাবস্থা জারি করে। আগামী ১৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত জায়েদ ও নিপুণ কেউই এ পদে দায়িত্ব পালন করতে পারবে না।

গত বৃহস্পতিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) নিপুণ শিল্পী সমিতির অফিস খুলে সেখানে গিয়ে সাধারণ সম্পাদকের চেয়ারে বসেন। এমনকি নিপুণ নিজের নাম লিখে সাধারণ সম্পাদকের নেমপ্লেটও সামনে নিয়ে বসেন। এ ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে চলচ্চিত্রাঙ্গণে সমালোচনার ঝড় উঠে।

অনেকে বলছেন, আদালতের নির্দেশনা সত্ত্বেও নিপুণ এ কাজ করল কিভাবে? তিনি কি আদালতের নির্দেশনা অমান্য করলেন?

এ ব্যাপারে সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে নির্বাচিত মুভিলর্ড খ্যাত মনোয়ার হোসেন ডিপজল বলেন, ‘আইন সবার জন্য সমান। কেউই আইনের ঊর্ধ্বে নয়। বিষয়টি যেহেতু আদালতে বিচারাধীন, তাই বিচার শেষ না হওয়া পর্যন্ত নিপুণ বা জায়েদ যেই হোক না কেন, কারোই আদালতের নির্দেশনা অমান্য করা উচিত নয়।’

নিপুণ সমিতির অফিসে গিয়ে সাধারণ সম্পাদকের চেয়ারে বসেছেন এবং কেক কেটেছেন- এ প্রসঙ্গে ডিপজল বলেন, ‘বিষয়টি আমি শুনেছি। যদি তাই হয়ে থাকে, তাহলে কাজটি ভাল হয়নি। যেহেতু আমরা জানি, আদালত ১৩ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নিপুণ বা জায়েদ কাউকেই দায়িত্ব পালনের আদেশ দেন নাই, তাই দুজনেরই এই আদেশ মানতে হবে। কেউ অমান্য করলে বা জোর জবরদস্তি করলে এটা আইনের লঙ্ঘন হয়েছে কিনা, তা আদালত দেখবে। তবে আমার মতে, এটা কোনোভাবেই উচিত হয়নি। আইনের প্রতি সবারই শ্রদ্ধা থাকতে হবে এবং মানতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমি মনে করি, আইন-আদালত যার পক্ষে রায় দেবে, সে-ই দায়িত্ব পালন করবে। এখানে জোর জবরদস্তির বিষয় নেই। আমরা শিল্পীরা সবাই এক পরিবারের সদস্য। এখানে কোনো ধরনের ঝগড়া-ঝাটি করা উচিত নয়।’


মুজিব বর্ষ

Pin It on Pinterest